ইতালি স্পন্সর ভিসা ২০২৩ আবেদন

ইতালি থেকে বাংলাদেশের সব ধরনের ভিসা বন্ধ করে দিয়েছিল ইতালির সরকার। কিন্তু বর্তমানে আবার ইতালির সরকার বাংলাদেশ থেকে ইতালি যাওয়ার জন্য ভিসা চালু করেছে। ইতালির শ্রম ও সামাজিক পরিকল্পনা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী মোট ভিসার মধ্যে ১৪,০০০ কোটা কৃষিখাতের মৌসুমী বা সিজনাল ভিসা জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে। এছাড়াও ২৬,০০০ কোটায় স্পন্সার ও উদ্যোক্তাদের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে যার মধ্যে ২০,০০০ কোটা নিয়ে নির্মাণ সরক এবং হোটেল-রেস্তোরাঁ জন্য বরাদ্দ থাকবে। আজকের এই পোস্টে আমরা ইতালির স্পন্সর ভিসা আবেদন সম্পর্কে জানাবো।

ইতালি স্পন্সর ভিসা কি

  • ইতালির সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে লোক নিবে এর জন্য অনেক বিষয়ই ছেড়েছে তারা তার মধ্যে অন্যতম স্পন্সর ভিসা।
  • ইতালিতে যাওয়ার জন্য মোট ১৪ হাজার কোটা কৃষিখাতের মৌসুম সিজনাল ভিসা জন্য নির্ধারিত থাকবে।
  • এরমধ্যে ২৬ হাজার কোটায় স্পন্সার ও উদ্যোক্তা ভিসার জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে।
  • এই স্পন্সর ভিসার মধ্যে ২০ হাজার কোটা নির্মাণখাত, সড়ক ও যোগাযোগ এবং হোটেল-রেস্তোরাঁয় জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আগে ইতালি কোন ভাবে যাওয়া যেত না। কারণ ইতালির সরকার ইতালি থেকে বাংলাদেশের সব ধরনের ভিসা বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে ইতালির সরকার আবার নতুন করে সেটি চালু করে দিয়েছে। ইতালির সরকার বিশেষ করে স্পন্সর ভিসায় বিভিন্ন দেশ থেকে নিবে। এখন যারা ইতালি যাবেন তাদের অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে এই স্পন্সর ভিসা কি। স্পন্সর ভিসা একই রকম কাজ থাকবে সেগুলো সম্পর্কে। তাই আজকের এই পোস্টে আমরা আপনাদের জানাতে চেষ্টা করেছি স্পন্সর ভিসা কি।

ইতালি স্পন্সর ভিসা ২০২৩ আবেদন

  • প্রকাশিত গেজেট অনুযায়ী নন সিজনাল ওয়ার্কার, স্টার্ট আপ বা উদ্যোক্তা ভিসা ইতালিতে আসতে আগ্রহীরা ২৭ জানুয়ারি থেকে আবেদন করতে পারবেন।
  • ইতালি যাওয়ার জন্য আপনাকে আবেদন করতে হবে সরকারের নির্দিষ্ট দপ্তরে।
  • অপরদিকে সিজনাল বা মৌসুমী ভিসার আবেদন করা যাবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২৩ এরমধ্যে।
  • এই দুইটির ক্ষেত্রে আবেদনের সময়সীমা থাকবে ২০২৩ এর ১৭ মার্চ পর্যন্ত।

ইতালির সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে কাজের জন্য লোক নিচ্ছে। তারা অনেক রকমের ভিসা ছেড়েছে তার মধ্যে অন্যতম হলো স্পন্সর ভিসা। কিন্তু আপনি সোজাসোজি ইতালি যেতে পারবেন না এই ভিসার মাধ্যমে। এই ভিসা পেতে হলে আপনাকে আগে আবেদন করতে হবে প্রকাশিত গেজেট অনুযায়ী। আবেদন করার পর আপনাকে অবশ্যই নির্বাচিত হতে হবে তাহলে আপনি ইতালি যেতে পারবেন। এখন অনেকেই জানেন না যে ইতালি স্পন্সর ভিসা কিভাবে আবেদন করবেন। তাই আজকের এই পোস্টে আমরা আপনাদের জানিয়ে দিয়েছি ইতালি স্পন্সর ভিসা আবেদন করার জন্য কি করবেন।

ইতালি গেলে কত টাকা লাগে

  • ইতালি সিজনাল ভিসা ও ইতালি নন সিজনাল ভিসা রয়েছে।
  • আপনি যদি সিজনাল ভিসা ইতালি যেতে চান তাহলে আপনার সর্বনিম্ন ৩/৪ লক্ষ টাকা লাগবে।
  • আর আপনি যদি নন সিজনাল ভিসায় ইতালি যেতে চান তাহলে আপনাকে ৯/১০ লক্ষ টাকা জমা দিতে হবে।
  • আর আপনি যদি এটি লোকের মাধ্যমে করেন তাহলে টাকা একটু বেশি লাগতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে অনেক যুবকরাই ইতালি যেতে চান। কারণ ইতালিতে কাজের চাহিদা অনেক বেশি বর্তমানে। বেশিরভাগ মানুষই রয়েছেন যারা এখন ইতালি যেতে ইচ্ছুক। কিন্তু ইতালি যাওয়া খুব একটা সহজ নয় ইতালি যাওয়ার জন্য অনেক টাকা খরচ করতে হয়। যারা ইতালি যেতে চান তারা জানেন না যে ইতালি যেতে কত টাকা খরচ হতে পারে। এটা না জানার কারণে অনেকেই অনেকের কাছে প্রতারিত শিকার হন। তাই আজকের এই পোস্টে আপনাদের সুবিধার্থে আমরা জানাতে চেষ্টা করেছি ইতালি যেতে  কত টাকা লাগে।

শেষ কথা 

আজকের এই পোস্টে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি ইতালির স্পন্সর ভিসা সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য। আশা করি আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আপনারা জানতে পেরেছেন ইতালির স্পন্সর ভিসা আবেদন কিভাবে করবেন। এরকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে পড়তে থাকুন।